মেনু নির্বাচন করুন
উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

 

কৃষিকার্য বা কৃষি (ইংরেজি: Agriculture) মানবজাতির আদিমতম পেশা হিসেবে চিহ্নিত। মানুষের জীবনধারনের জন্য শষ্য উৎপাদন কিংবা গৃহপালিত পশু রক্ষণাবেক্ষনের জন্যে যথোচিত খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় কাঁচামাল উৎপাদন ও সরবরাহসহ বহুবিধ উদ্দশ্যে প্রতিপালনের লক্ষ্যে কৃষিকার্য নির্বাহ করা হয়। যিনি কৃষির সাথে সংশ্লিষ্ট তিনিই কৃষক

কৃষিকার্য প্রচলনের ইতিহাস হাজার হাজার বছরের পুরনো। আধুনিক পর্যায়ে এসে কৃষির উন্নয়ন ও উত্তরণ বহুমূখী জলবায়ু, সংস্কৃতি এবং উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের উপর বহুলাংশে নির্ভরশীল। সবধরনের কৃষিকাজই উপযুক্ত কলা-কৌশল প্রয়োগ ও ভূমির উপযুক্ততা নিরূপণপূর্বক ব্যবহার উপযোগী ফসল বপনের উপর নির্ভর করে। প্রয়োজনে সময়ে সময়ে ফসল বৃদ্ধিকল্পে প্রয়োজনীয় সেচও প্রয়োগ করতে হয়।

ফসল বৃদ্ধিকল্পে আধুনিক চাষাবাদে কীটনাশক, উদ্ভিদের পরাগায়ণ, সার প্রয়োগ এবং প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান উন্নয়নের মাধ্যমে ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটানোর প্রাণপণ প্রয়াস চালানো হচ্ছে। এরফলে, পরিবেশের ভারসাম্যহীনতাসহ জীববৈচিত্র্যের ধ্বংসাযজ্ঞ দ্রুত হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং মানব স্বাস্থ্যের উপর নেতিবাচক ও বিরূপ প্রভাব ফেলছে।[১]

পরিচ্ছেদসমূহ

উৎপাদিত কৃষি পণ্য

উৎপাদিত কৃষি পণ্যকে কয়েকটি প্রধান ভাগে ভাগ করা হয়েছে। তন্মধ্যে খাদ্য, তন্তুজাত পদার্থ, জ্বালানী এবং কাঁচামাল সামগ্রী অন্যতম। একবিংশ শতাব্দীতে এসে উদ্ভিদের সাহায্যে জৈবজ্বালানী, জৈবঔষধ, জৈবপ্লাস্টিকজাত পণ্য[২] উৎপাদনসহ ঔষধ শিল্পে[৩] ব্যবহার করা হচ্ছে। নির্দিষ্ট খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে দানাদার শষ্য, শাকসব্জী, ফলমূল এবং মাংস; তন্তুজাত দ্রব্যের মধ্যে তুলা, উল, দড়ি, রেশম এবং ফ্লাক্স; কাঁচামালের মধ্যে এবং বাঁশ অন্যতম। অন্যান্য প্রয়োজনীয় উদ্ভিদজাত পণ্যের মধ্যে রেজিন গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। জৈবজ্বালানী হিসেবে মিথেন, ইথানল এবং বায়োডিজেল রয়েছে। এছাড়া, ফুল বিক্রয়, চারাগাছ, পোষা প্রাণী, বিশেষ প্রজাতির মাছ, পাখি কৃষি পণ্য হিসেবে বিবেচিত। বিশ্বব্যাংকের নির্দেশনা ও লক্ষ্যমাত্রা অনুসারে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি ও জল ব্যবস্থাপনাকে ঘিরে উত্তরোত্তর বিশ্বব্যাপী সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বিতর্কের পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছে।[৪]

২০০৭ সালে বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ লোক কৃষির সাথে জড়িত ছিলেন। সেবা খাত হিসেবে কৃষিকে অর্থনৈতিক খাতে নিয়েছেন যাতে বিশ্বের অধিকাংশ লোক বিনিয়োজিত রয়েছেন।[৫] কিন্তু এর বিশাল কর্মক্ষেত্রতা, কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন প্রভৃতি বিষয় থাকা স্বত্ত্বেও বৈশ্বিক মোট উৎপাদনশীলতায় এর অবদান ৫%-এর চেয়েও কম।

জ্বালানী কৃষি

১৯৪০-এর দশক থেকে কৃষি উৎপাদন অত্যন্ত নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এর প্রধান কারণ ছিল জ্বালানী নির্ভর যান্ত্রিক পরিবহন, সার এবং কীটনাশকের ব্যাপক ব্যবহার। তন্মধ্যে এ খাতে সবচেয়ে বেশী জ্বালানী এসেছে জীবাশ্ম বা কয়লাজাত জ্বালানী থেকে।[৬]

https://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/f/f6/Coffee_Plantation.jpg/300px-Coffee_Plantation.jpg

 

কফি চাষ, ব্রাজিল

কৃষি নীতি

কৃষি নীতির মাধ্যমে কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন, বিপণন, সরবরাহ পদ্ধতির উপর দিক-নির্দেশনা থাকে। সচরাচর কৃষিকার্যের নীতিমালা প্রণয়নের সময় নিম্নোক্ত প্রধান বিষয়াবলীর দিকে আলোকপাত করা হয় -

https://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/1/15/Sheep_and_cow_in_South_Africa.jpg/260px-Sheep_and_cow_in_South_Africa.jpg

 

আরও দেখুন

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

-কৃষি (ফসলের উৎপাদন প্রযুক্তি)

ফসলের শ্রেণি

বিস্তারিত জানতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন

দানাদার জাতীয় (ধান, গম, ভুট্টা ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/দানাদার

সবজি (টমেটো, লাউ, ফুলকপি ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/সবজি

তেল জাতীয় (সরিষা, সয়াবিন ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/তেল ফসল

মসলা জাতীয় (পেঁয়াজ, রসুন, আদা ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/মসলা

কন্দাল জাতীয় (আলু, কচু ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/কন্দাল

ডাল জাতীয় (মুগ, মসুর, ছোলা ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/ডাল ফসল

অর্থকরী ফসল (পাট, চা ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/অর্থকরী

ফল ফসল (আম, কাঁঠাল, লিচু ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/ফল

ফুল (গোলাপ, রজনীগন্ধা ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/ফুল

অন্যান্য ফসল/প্রযুক্তি (পাহাড়ী কৃষি, মাশরুম ইত্যাদি)

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/অন্যান্য

মৎস্য সম্পদ

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/মৎস্য

প্রাণিসম্পদ

http://www.ais.gov.bd/site/view/ekrishi/প্রাণিসম্পদ

কৃষি সেবার তালিকা

আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি হস্তান্তর:

 (১) প্রদর্শনী স্থাপন

(২) মাঠ দিবস

(৩)কৃষক র‌্যালি, কৃষি প্রযুক্তি মেলা।

(৪) দলীয় আলোচনা ও ব্যক্তিগত যোগাযোগ ।

(৫) ই-কৃষি সার্ভিস

(৬) সেমিনার ও ওয়ার্কসপ

(৭) পোস্টার , লিফলেট , ফ্লিপ চার্ট ।

(৮) জারি গান ভিডিও শো । 

 

 

কৃষকদের দক্ষতা উন্নয়ন:

(১) কৃষক প্রশিক্ষণ

 

কৃষির সমস্যা বিষয়ে পরামর্শ :

(১) ইউনিয়ন কমপ্লেক্স এবং কৃষি পরামর্শ কেন্দ্রে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের দ্বারা কৃষি বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করা হয়।

(২) ই-কৃষি সার্ভিস

(৩) উপজেলা কৃষি অফিস

(৪) উপ-পরিচালকের অফিস

(৫) কৃষকদের ফসলের মাঠ পরিদর্শন

 

কৃষি উপকরণ সহজলভ্যকরণ :

(১) বিসিআইসি ও খুচরা সার বিক্রেতাদের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার সার বিতরণ।

(২) কীটনাশক ডিলারদের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার কীটনাশক বিক্রয় করা।

(৩) বিএডিসি’র বীজ ডিলারদের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার বীজ বিক্রয় করা।

(৪) চাষী পর্যায়ে বীজ  সংরক্ষণ।

(৫) প্রাইভেট বীজ কোম্পানীর মাধ্যমে বীজ সরবরাহ ।

 

কৃষক সংগঠন :

(১) আইপিএম, আইসিএম, সিসিএফএস, এফটিএফএফএস এর মাধ্যমে।

(২) এসসিডিপি কৃষক গ্রুপ তৈরী ।

 

কৃষক র‌্যালি, কৃষি প্রযুক্তি মেলা

(১) এসসিডিপি প্রকল্পের মাধ্যমে।‘

(২)ঋণ প্রদানকারী ব্যাংক/সংস্থার মাধ্যমে।

(৩) বৃক্ষ মেলা ।

ভর্তুকি:কৃষি ভর্তুকির কার্ড সরবরাহ, কৃষি পুনর্বাসন বাস্তবায়ন, কৃষি প্রনোদনা প্যাকেজ।

 

 

সিটিজেন চার্টার বিভিন্ন নাগরিক সেবা

১।  ভিশন মিশন

১.১) ভিশন (রুপকল্প) – ফসলের টেকসই ও লাভজনক উৎপাদন

১.২) মিশন (অভিলক্ষ্য) – টেকসই ও লাভজনক ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি নিশ্চিতকরনের লক্ষ্যে দক্ষ, ফলপ্রসু, বিকেন্দ্রীকৃত, এলাকানির্ভর, চাহিদা ভিত্তিক এবং সমন্বিত কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানের মাধ্যমে সকল শ্রেণীর কৃষকের প্রযুক্তি জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ।

২। সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি

২.১) নাগরিক সেবাঃ

ক্রমিক

সেবার নাম

সেবাসমূহ সম্পর্কিত মৌলিক তথ্যাবলী

সেবা প্রদান পদ্ধতি

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও প্রাপ্তি স্থান

সেবা মুল্য ও পরিশোধ পদ্ধতি

সেবা

প্রদানের সময়সীমা

দায়িতবপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (পদবি, ফোন নম্বর, ই-মেইল)

১.

কৃষি বিষয়ক পরামর্শ প্রদান

 চাহিদা প্রাপ্তি সাপেক্ষে কৃষি বিষয়ক পরামর্শ সেবা প্রদান এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে মাঠ পরিদর্শন /প্রশিক্ষণ/প্রদর্শনী/মাঠ দিবস/দলীয় সভার আয়োজন

চাহিদা প্রাপ্তি (ব্যক্তিগত যোগাযোগ/এসএমএস/টেলিফোন/মোবাইল কল/ই-মেইল)  পরামর্শ প্রদান, আবেদন প্রাপ্তি  

-

বিনামূল্যে  

সর্বোচ্চ

কর্মদিবস

১। উপপরিচালক

০৭৬১-৬৩১৯৩

২। জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা

০৭৬১-৬৩২৪৮

৩। অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য)

৪। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট উপজেলা কৃষি অফিস

২.

উন্নয়ন সহায়তার মাধ্যমে কৃষি যন্ত্রপাতি প্রদান

কৃষি যান্ত্রিকীকরণের লক্ষ্যে কৃষি যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ৩০% পর্যন্ত উন্নয়ন সহায়তা প্রদান  

* উপজেলা কমিটির অনুমোদন

* প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির অনুমোদন

* আদেশ জারি ও হস্তান্তর

নির্ধারিত ফরমে আবেদন (ফরম) সংশ্লিষ্ট উপজেলা কৃষি অফিস

যন্ত্রের মূল্যের ৫০% নগদ পরিশোধ

৪৫ কর্মদিবস

১।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট উপজেলা কৃষি অফিস

৩.

বিসিআইসি সার ডিলার নিবন্ধন নবায়ন  

কৃষক পর্যায়ে মান সম্পন্ন সার সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে লাইসেন্স নবায়ন

* নির্ধারিত ফরমে আবেদন প্রাপ্তি মূল্যায়ন ও সংশ্লিষ্ট ডিডি-ডিএই’র সুপারিশ নবায়ন সনদ প্রদান

১) নির্ধারিত ফরমে আবেদন

২) আবেদন ফরমে উল্লেখিত অন্যান্য দলিলাদি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, খামারবাড়ী, ফরিদপুর

 

১০০০/=

ট্রেজারি চালান, ভ্যাট-১৫০/= এর মাধ্যমে

১০

কর্মদিবস

 

পদবীঃ উপপরিচালক, ডিএই

 ফোনঃ ০৭৬১-৬৩১৯৩

৪.

পেস্টিসাইড রিটেইল লাইসেন্স

কৃষক পর্যায়ে মান সম্পন্ন কিটনাশক সরবরাহ নিশ্চিত করতে সকল ধরনের পেস্টিসাইড রিটেইল লাইসেন্স প্রদান

নির্ধারিত ফরমে আবেদন প্রাপ্তি, উপজেলা কৃষি অফিসারের মূল্যায়ন ও সুপারিশ লাইসেন্স প্রদান

১) ফরম-৮ এ দুই কপি আবেদন,

২)ট্রেড লাইসেন্স

৩) দোকানের বিবরন

৪) নাগরিক সনদ

 

ডিএই’রউপজেলা কৃষি অফিস সমূহ

৩০০/=

ট্রেজারি চালান, ভ্যাট-৪৫/= এর মাধ্যমে

৩০  

কর্মদিবস

অতিরিক্ত উপপরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষন) , ডিএই

 

৫.

পেস্টিসাইড হোলসেল লাইসেন্স

কৃষক পর্যায়ে মান সম্পন্ন কীটনাশক সরবরাহ নিশ্চিত করতে সকল ধরনের পেস্টিসাইড রিটেইল লাইসেন্স প্রসান

নির্ধারিত ফরমে আবেদন প্রাপ্তি, উপজেলা কৃষি অফিসারের মূল্যায়ন ও সুপারিশ লাইসেন্স প্রদান

১) ফরম-৮ এ দুই কপি আবেদন,

২)ট্রেড লাইসেন্স

৩) দোকানের বিবরন

৪) নাগরিক সনদ

৫) কোম্পানি কর্তৃক পত্র

 

ডিএই’র উপজেলাকৃষি অফিস সমূহ

১০০০/=

ট্রেজারি চালান, ভ্যাট-১৫০/= এর মাধ্যমে

৩০

কর্মদিবস

অতিরিক্ত উপপরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষন) ,  জেলা অফিস

৬.

নার্সারি রেজিস্ট্রেশন

কৃষক পর্যায়ে মান সম্পন্ন চারা/কলম সরবরাহ নিশ্চিত করতে লাইসেন্স প্রদান

নির্ধারিত ফরমে আবেদন প্রাপ্তি, উপজেলা কৃষি অফিসারের মূল্যায়ন ও সুপারিশ লাইসেন্স প্রদান

১) নির্ধারিত ফরমে দুই কপি আবেদন ২) ট্রেড লাইসেন্স ৩) নার্সারির বিবরণ ৪) নাগরিক সনদ

ডিএই’র জেলা ও উপজেলা অফিসসমূহ

৫০০/=

ট্রেজারি চালান, ভ্যাট-৭৫/= এর মাধ্যমে

৩০

কর্মদিবস

 উপপরিচালক,  ডিএই, চুয়াডাঙ্গা

 

 

তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ অনুযায়ী দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তথ্যপত্র

প্রতিষ্ঠান/কার্যালয়ের নাম

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

পূর্ণ ঠিকানা

খামারবাড়ি, টেপাখলা, ফরিদপুর

ফোন, ফ্যাক্স, ই-মেইল ও ওয়েবসাইট

ফোনঃ ০৭৬১-৬৩১৯৩   

ই-মেইলঃ  dddaechuadanga@gmail.com

প্রতিষ্ঠানের ধরণ  

সরকারি

প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

টেকসই ও লাভজনক ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি নিশ্চিতকরনের লক্ষ্যে দক্ষ, ফলপ্রসু, বিকেন্দ্রীকৃত, এলাকানির্ভর, চাহিদা ভিত্তিক এবং সমন্বিত কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানের মাধ্যমে সকল শ্রেণীর কৃষকের প্রযুক্তি জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ।

প্রতিষ্ঠানের উল্লেখ্যযোগ্য কার্যক্রম

১। সকল শ্রেণীর কৃষকের জন্য কৃষি বিষয়ক প্রযুক্তি সম্প্রসারণ সেবা প্রদান

২। প্রদর্শনী প্লট স্থাপন, মাঠ দিবস, কৃষক প্রশিক্ষণ, কৃষক সমাবেশ এর মাধ্যমে ফসলের উন্নত জাত ও উন্নত প্রযুক্তি সম্প্রসারণ

৩। কৃষি বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ স্থাপন এবং গবেষণালব্দ তথ্য ও প্রযুক্তি সমূহ কৃষকদের মাঝে সম্প্রসারণ করা।

৪। সম্প্রসারণ কর্মীদের প্রশিক্ষণ প্রদান

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নাম, পদবী, ফোন ও ই-মেইল

জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা

টেলিফোনঃ ০৭৬১-৬৩২৪৮

ই-মেইলঃ dddaechuadanga@gmail.com

বিকল্প কর্মকর্তার (দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার অনুপস্থিতিতে)  নাম, পদবী, ফোন ও ই-মেইল

অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য)  

টেলিফোনঃ

মোবাইলঃ

ই-মেইলঃ -

আপীল (তথ্য না পেলে) কর্তৃপক্ষের নাম, পদবী, ফোন ও ই-মেইল

অতিরিক্ত পরিচালক,

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,

যশোর অঞ্চল, যশোর

টেলিফোনঃ ০৪২১-৬৮৬২৯

মোবাইলঃ -  

ই-মেইলঃ addaejessore@gmail.com

সার্বিক সেবা সম্পর্কিত অভিযোগ জানানোর ঠিকানা

উপপরিচালক,

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,খামারবাড়ি, চুয়াডাঙ্গা

ছবি নাম মোবাইল
প্রতাপ চন্দ্র দত্ত 01743726848
মোঃ মানিক মিয়া 01714609343

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ মানিক মিয়া 01714609343

ছবি নাম মোবাইল

প্রকল্পের নাম:

                 ১. চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ধান, গম পাট  বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ বিতরণ প্রকল্প

              ২. চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তৈল পেঁয়াজ  বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প

              ৩. এগ্রিকালচার এক্সটেনশন কম্পোমেন্ট(এইসি) প্রকল্প

              ৪. উপজে্লা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষন প্রকল্প

              ৫. কৃষি যন্ত্রপাতি উদ্ভাবন সম্প্রসারণ প্রকল্প।

              ৬. বিএসএমএমইউ-কর্ণেল এফএফপি প্রকল্প

              ৭. বিনা ময়মনসিংহ কর্তৃক স্থাপিত প্রদর্শনী

              ৮. গম গবেষনা কেন্দ্র নশিপুর, দিনাজপুর কর্তৃক স্থাপিত গমের জাত প্রদর্শনী

 

প্রকল্প সমুহের বিবরণ: 

১. নাম: চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ধান, গম পাট বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ বিতরণ প্রকল্প : 

               প্রকল্পের উদ্দেশ্য: আধুনিক জাতের বীজ উৎপাদনের মাধ্যমে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বীজের চাহিদা  পুরণসহ ফসলের   উৎপাদন  বৃদ্ধি করা।

              মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৮ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

              প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: জেলার সকল উপজেলা

              উপকারভোগীর সংখ্যা: ১১৫৭০ জন।

              প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১১৫৭০ টি

              প্রশিক্ষণ:

                       কর্মকর্তা সংখ্যা: ৩৬০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০টাকা)

                       কৃষক সংখ্যা: ১১৫৭০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-১২০)।

              অর্থের উৎস: জিওবি।

 

২. নাম: চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তৈল পেয়াজ বীজ উৎপাদন, সংরক্ষন বিতরণ প্রকল্প :

             প্রকল্পের উদ্দেশ্য: উন্নতমানের ডাল, তৈল ও পেয়াজ বীজ উৎপাদন, সংরক্ষন ও বিতরণের মাধ্যমে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বীজের চাহিদা পুরণসহ ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি করা।

             মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৮ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

             প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: জেলার সকল উপজেলা

             উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৫১০ জন

             প্রদর্শনীর সংখ্যা: ২৫১০ টি

             প্রশিক্ষণ:

                     কর্মকর্তা সংখ্যা: ১৮০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা- ২০০ টাকা)

                     কৃষক সংখ্যা: ২৫১০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-১২০ টাকা)

                     অর্থের উৎস: জিওবি

৩. নাম: এগ্রিকালচার এক্সটেনশন কম্পোমেন্ট(এইসি) প্রকল্প:

           প্রকল্পের উদ্দেশ্য: কৃষকদের কয়েক মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা,  বিষমুক্ত ফসল উৎপাদন, উপকারী পোকামাকড় সংরক্ষণ ও কৃষকদের সংগঠিত করার মাধ্যমে কৃষি ক্লাব গঠন।

মেয়াদকাল: আইপিএম - জুলাই ১৯৯৮ হতে চলমান।

আইসিএম - জুলাই  ২০০৭ হতে ২০১২ পর্যন্ত।

           প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সকল উপজেলা

           উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৭৯৫০ জন

           কৃষক মাঠ স্কুলের সংখ্যা: আইপিএম- ৩৯৮ টি (প্রতিটি স্কুলে কৃষক ও কৃষাণী সংখ্যা- ২৫ জন)।

         আইসিএম- ৩৬০ টি (প্রতিটি স্কুলে কৃষক ও কৃষাণী সংখ্যার- ৫০ জন)।

           প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কৃষক সংখ্যা: ১৬৯৬০ জন

           প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কৃষাণীর সংখ্যা: ১০৯৯০জন

           ক্লাব সংখ্যা:

                        আইপিএম:৩১৯ টি

                        আইসিএম:২৯৭ টি

           অর্থের উৎস: জিওবি ও ডানিডা।

 

৪. নাম: উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ প্রকল্প:

         প্রকল্পের উদ্দেশ্য: কৃষকদের আধুনিক প্রযুক্তি হাতে কলমে শিক্ষাদানের মাধ্যমে কৃষি বিষয়ক জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধি।

         মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৯ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

         প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, কাজিপুর ও শাহজাদপুর।

         উপকারভোগীর সংখ্যা: ১১,২৫০ জন

         প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১৫ টি

         কৃষক প্রশিক্ষণ : ১১,২৫০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০+২০০=৪০০ টাকা)

         অর্থের উৎস: জিওবি

 

৫. নাম: কৃষি যন্রপাতি প্রযুক্তি উদ্ভাবন সম্প্রসারণ প্রকল্প:

         প্রকল্পের উদ্দেশ্য: আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারে কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণ ও কমখরচে ফসল উৎপাদন বিষয়ে জ্ঞান বৃদ্ধিকরণ।

         মেয়াদকাল: জুলাই ২০১০ হতে জুন ২০১৫ পর্যন্ত

         প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: উল্লাপাড়া

         উপকারভোগীর সংখ্যা: ১৭৫২ জন 

         প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১২ টি

         কৃষক প্রশিক্ষণ: ১৭৫২ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০টাকা) 

         অর্থের উৎস: জিওবি

 

৬. বিএসএমএমইউ-কর্ণেল এফএফপি প্রকল্প:

প্রকল্পের উদ্দেশ্য: ডলোডুন ব্যবহারের উপকারীতা সম্মধ্যে কৃষকদের হাতে কলমে শিক্ষাদান ও ফসলের আশানুরুপ ফলন বৃদ্ধি।

        মেয়াদকাল: জুলাই ২০১০ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত।

        প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: রায়গঞ্জ, তাড়াশ ও উল্লাপাড়া।

        উপকারভোগীর সংখ্যা: ৬৬ জন

        প্রদর্শনীর সংখ্যা: ৬৬টি

        কৃষক প্রশিক্ষণ : ৬৬ জন

        অর্থের উৎস: বিএসএমএমইউ ও কর্ণেল এফএফপি।

 

৭. বিনা ময়মনসিংহ কর্তৃক স্থাপিত সরিষা প্রদর্শনী:

       প্রকল্পের উদ্দেশ্য: বিনা কর্তৃক উদ্ভাবিত নতুন জাত সমুহ সম্প্রসারণ।

       মেয়াদকাল: ২০০৮ হতে চলমান

       প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, তাড়াশ, উল্লাপাড়া ও বেলকুচী।

       উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৬৬ জন

       প্রদর্শনীর সংখ্যা: ২৬৬ টি

       কৃষক প্রশিক্ষণ: ২৬৬ জন

       অর্থের উৎস: বিনা ময়মনসিংহ।

 

৮. গম গবেষনা কেন্দ্র, নশিপুর, দিনাজপুর কর্তৃক স্থাপি্ত গম প্রদর্শনী:

       প্রকল্পের উদ্দেশ্য: সদর, কাজিপুর, শাহজাদপুর ও বেলকুচী।

       মেয়াদকাল: ২০০৯ হতে চলমান

       প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, কাজিপুর, শাহজাদপুর ও বেলকুচী।

       প্রদর্শনীর সংখ্যা: ৫৮ টি

       কৃষক প্রশিক্ষণ : ৫৮ জন

       অর্থের উৎস: গম গবেষনা কেন্দ্র, নশিপুর, দিনাজপুর।

১নং রুস্তমপুর ইউনিয়ন পরিষদ, গোয়াইনঘাট, সিলেট ।
 



Share with :

Facebook Twitter